Header Ads

সবচেয়ে সুন্দর কিছু সমীকরণঃ জেনারেল রিলেটিভিটি

অনেক গণিতবিদ বলে থাকেন তাদের প্রিয় ইকুয়েশন বা সমীকরণ বলতে শুধু সেগুলোকেই বোঝায় না যার অনেক বেশি উপযোগিতা রয়েছে বরং সেসব সমীকরণকে বোঝায় যারা নিজেদের মধ্যে সাধারণ, সত্য ও কাব্যিক সৌন্দর্যকে বহন করে থাকে।

সবচেয়ে সুন্দর কিছু সমীকরণঃ জেনারেল রিলেটিভিটি

এগুলোর মধ্যে রয়েছে জগৎবিখ্যাত কিছু সমীকরণ যেমন আলবার্ট আইন্সটাইনের E = mc^2 আবার অসংখ্য স্বল্প পরিচিতি সমীকরণও এই তালিকায় রয়েছে যারা নিজেদের মধ্যে এমন সৌন্দর্য প্রকাশ করতে পারে। লাইভ সায়েন্স বেশ কিছুদিন পূর্বে পদার্থবিদ, জ্যোতির্বিদ এবং গণিতবিদদের কাছে জানতে চান তাদের সবচাইতে প্রিয় সমীকরণ কোনটি এবং কেন? সেই প্রশ্নে যেসব সমীকরণের কথা উঠে এসেছিলো আমরা সেটা তুলে ধরবো "সবচেয়ে সুন্দর কিছু সমীকরণ" সিরিজের মাধ্যমে।

আজকে সিরিজের প্রথম পর্বে থাকছে একটি অসাধারণ জনপ্রিয় এবং গুরুত্বপূর্ণ সমীকরণঃ জেনারেল থিওরি অফ রিলেটিভিটির সমীকরণ!

জেনারেল রিলেটিভিটি


জেনারেল থিওরি অফ রিলেটিভিটি

এই সমীকরণটি তৈরি করেছিলেন বিখ্যাত বিজ্ঞানী আইনস্টাইন তার জগদ্বিখ্যাত আপেক্ষিক তত্ত্ব বা জেনারেল থিওরি অফ রিলেটিভিটির অংশ হিসেবে ১৯০৫ সালে। এই তত্ত্বই মহাকর্ষ বা গ্রাভিটি সম্পর্কে বিজ্ঞানীদের ধারণায় আমূল পরিবর্তন নিয়ে আসে একে স্পেস-টাইমের মাঝে মোচড় হিসেবে তুলনা করে।

স্পেস টেলিস্কোপ সায়েস্ন ইন্সটিউটিউটের গবেষক মারিয়ো লিভিয়ো বলেন, "বিষয়টা আমাকে এখনও আশ্চর্য করে তোলে যে কীভাবে শুধুমাত্র একটি ইকুয়েশনের সাহায্যে সম্পূর্ণ স্পেস-টাইমকে ব্যাখ্যা করে ফেলা যায়!" জেনারেল রিলেটিভিটির সমীকরণটিকে তিনি নিজের প্রিয় সমীকরণের তালিকায় রাখেন। তার মতে আইন্সটাইনের অসামান্য মেধার বহিঃপ্রকাশ শুধুমাত্র এই একটি সমীকরণ দিয়েই নিখুঁতভাবে প্রকাশিত হয়।

জেনারেল থিওরি অফ রিলেটিভিটি সমীকরণ

সমীকরণের ডান দিকের অংশ আমাদের মহাবিশ্বের সকল শক্তি সমূহকে বর্ণনা করে থাকে এবং এর মধ্যে ডার্ক এনার্জিও রয়েছে যা মহাজাগতিক ত্বরণের জন্য দায়ী। গবেষক লিভিয়ো ব্যাখ্যা করেন, "সমীকরণের বাম অংশটি স্পেস-টাইমের জ্যামিতিক বৈশিষ্ট্যকে ব্যাখ্যা করে থাকে। এদের সমতা বলে যে ভর এবং শক্তিই স্পেস-টাইমের জ্যামিতিক বৈশিষ্ট্য এবং এর বেঁকে যাবার ঘটনাগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করে যা প্রকাশ করার একটি মাধ্যম হচ্ছে গ্র্যাভিটি।

Kyle Crammer, নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির একজন পদার্থবিদ বলেন, "এটি একই সাথে অত্যন্ত আকর্ষণীও এবং গুরুত্বপূর্ণ একটি সমীকরণ। এটি স্পেস-টাইম এবং ভর, শক্তির মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ককে ব্যাখ্যা করে। এই সমীকরণটা আপনাকে বলে তাদের মধ্যে কি সংযোগ রয়েছে। সূর্যের উপস্থিতি কী করে স্পেস-টাইমকে এমনভাবে বাঁকিয়ে দেয় যে পৃথিবী তার চারিদিকে ঘুরতে থাকে তার ব্যাখ্যাও এই সমীকরণ দেয়। পাশপাশি এটাও বলে যে বিগ ব্যাং এর পরবর্তী সময়ে মহাবিশ্ব কীভাবে বিবর্তিত হয়েছে এবং ব্ল্যাকহোলের অস্তিত্বও এটি অনুমান করতে পারে।

সিরিজের পরবর্তী লিখা অন্য কোন একটি সুন্দর সমীকরণ এবং তার ব্যাখ্যা নিয়ে খুব শীঘ্রই প্রকাশিত হবে। যদি লিখাটি ভালো লেগে থাকে তাহলে ফেসবুকে শেয়ার করুন এবং অন্যদেরও জানান। এমন আরও লিখা পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন। সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।  

No comments: