Header Ads

বহির্জাগতিক উল্কার প্রবেশ আমাদের সৌরজগতে!

সম্প্রতি, হাওয়াই দীপপুঞ্জের হালিয়াকালা মানমন্দিরের Anoramic Survey Telescope and Rapid Response System (Pan-STARRS) টেলিস্কোপ ব্যাবহার করে সৌরজগতের বহিঃস্থ অঞ্চল থেকে আগত একটি উল্কার সন্ধান পাওয়া গিয়েছে । এর কক্ষপথের আকৃতি হল অধিবৃত্তীয় এবং যার উৎকেন্দ্রিকতা(eccentricity) হল ১.৮-১,৯ । সৌরজগতে এখন পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া জ্যোতিষ্কগুলির মধ্যে এটির উৎকেন্দ্রিকতা হল সবচাইতে বেশি । গত ১৮ অক্টোবরে এটি যখন পৃথিবীর ০.২ অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল ইউনিট বা ৩০,০০০,০০০ কিলোমিটার দূর দিয়ে পৃথিবীকে অতিক্রম করেছে তখন এটিকে খুঁজে পাওয়া গিয়েছে ।

বহির্জাগতিক উল্কার প্রবেশ আমাদের সৌরজগতে!

C/2017 U1 দাপ্তরিক নামের এই উল্কাটি বীণা(lyra) নক্ষত্রমণ্ডলের আন্তঃনাক্ষত্রিক(intersteller) হতে সৌরজগতে প্রবেশ করেছে । এটির অনুসুর বা সূর্যের নিকটতম দূরত্ব ছিল ৩৭,৬০০,০০০ কিলোমিটার । এই অনুসুর(Perihelion) অবস্থানে এটির উজ্জ্বলতার আপাত মান ছিল +২১ । তবে সূর্যের নিকটতম অবস্থান দিয়ে অতিক্রম করলেও এটির গতি কারনে সূর্যের তাপে ভেঙ্গে যায় নি। সেকেন্ডে ১৯ কিলোমিটার গতিবেগের এই উল্কাটির ব্যাস হল ১৬০ মিটার এবং লম্বায় প্রায় ৮ কিলোমিটার । এটির বর্তমান গতিতে এটি ১ কোটি বছরে প্রায় ৮৫০ আলোকবর্ষ অতিক্রম করতে পারবে। শুধু তাই নয় এটি প্রতি ৭.৫ ঘণ্টায় নিজের অক্ষে একবার আবর্তন সম্পন্ন করেন।

Astronomical Union's Minor Planet Center এর প্রকাশিত এক নিবন্ধে উল্লেখ করা হয় এই উল্কার উপাদানের প্রতিফলন অনুপাত(albedo) হল মাত্র ১০ শতাংশ । আর আকৃতিতেও অন্য ধূমকেতুর চাইতে ছোট হওয়ায় ভবিষ্যতে আর বেশি দিন একে পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হবে না । বীণা নক্ষত্রমণ্ডলের অভিজিৎ(vega) নক্ষত্রের বাবস্থা থেকে এর উৎপত্তি হতে পারে । এটি যখন বৃহস্পতির নিকট দিয়ে অবস্থান করছিল তখন এটি এর অধিবৃত্তাকার কক্ষপথ থেকে কিছুটা সরে যায় এবং বৃহস্পতিকে অতিক্রম করা সময় এটির গতিও কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে ।

প্রথমে একে ধুমকেতু হিসেবে বিবেচনা করলেও ২৫ অক্টোবরে Very Large Telescope (VLT) ব্যাবহার করে ক্লোজ-আপ ছবিতে এটির মধ্যে কোন ধূমকেতুর বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায় নি । পরবর্তীতে একে উল্কা হিসেবে গণ্য করা হয় এবং এর দাপ্তরিক নাম A/2017 U1 রাখা হয় । উল্কা বা গ্রহাণু থেকে ধুমকেতুর মুল পার্থক্য হল এর কমা ও লেজের উপস্থিতি। কিছু বিরল ধূমকেতু সূর্যের খুব নিকট দিয়ে বারবার পরিভ্রমণ করার কারণে উদ্বায়ী বরফ ও ধুলা হারিয়ে ছোট গ্রহাণুর মত বস্তুতে পরিণত হয়।

বহির্জাগতিক উল্কার প্রবেশ আমাদের সৌরজগতে!

সম্প্রতি জ্যোতির্বিদেরা এই উল্কাটির ঐতিহ্যমুলক নাম এবং বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে একটি গ্রাফিক্স ইমেজ প্রকাস করেছে ! ওমুয়ামুয়া (Oumuamua) নামের এই উল্কাটি সৌরজগতে একমাত্র বহির্জাগতিক বা interstellar উল্কা না । Oumuamua হল হাওয়ায় পুরাণের একজন বার্তাবাহক বা ফেরেশতা ! জ্যোতির্বিদদের মতে প্রায় ১০,০০০ বহির্জাগতিক উল্কা আমাদের সৌরজগতে আছে । এরা এতটা দ্রুতিসম্পন্ন যে সূর্যও এর অধিক মহাকর্ষ দ্বারা নিজের মধ্যে টেনে নিতে পারে না ! প্রতিবছর প্রায় ১ হাজারটি বহির্জাগতিক উল্কা সৌরজগতে প্রবেশ করে এবং প্রায় ১ হাজারটি উল্কা সৌরজগৎ ত্যাগ করে বলে নতুন এক গবেষণায় উঠে এসেছে ! আর এসব উল্কা সূর্যের নিকট বেশি অবস্থান করে ।ওমুয়ামুয়া উল্কাটি এতে পতিত ৯৮ শতাংশ আলো শোষণ করে নেয় ।দৃশ্যমান আলয় এটি দেখতে ঈষৎ লালচে কালো । এর লাল বর্ণের কারন হল এটি কার্বন ও হাইড্রোজেনের তৈরি জৈবযৌগের তৈরি ! শুধু তাই নয়, এই ধরনের উল্কাও হয়ত নক্ষত্র থেকে আরেক নক্ষত্রে প্রান পরিবহন করে !

তথ্যঃ 

লেখক পরিচিতি
লিখেছেনঃ জ্যোতির্বিদ্যা ও সৃষ্টিতত্ত্ব পেইজ

লিখাটি ভালো লেগে থাকলে সোশ্যাল নেটওয়ার্কে এবং নিজের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। নিয়মিত এমন লিখা পেতে EduQuarks এর সাথেই থাকুন। যুক্ত হোন আমাদের ফেসবুক গ্রুপে এবং ফেসবুক পেইজে। সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

No comments: